ইফতার ও সেহরীর সময়সূচী ২০২২ ইসলামিক ফাউন্ডেশন

0 ৪৩১

২০২২ সালের সরকরি ছুটির তালিকা, হিজরি ১৪৪৩ ক্যালেন্ডার ও ইংরেজি ২০২২ সালের বর্ষপঞ্জি, শবে বরাত ২০২২ এর তারিখ অনুযায়ী রমজান ২০২২ এর পবিত্র সিয়াম বা রোজা শুরু হচ্ছে ২রা এপ্রিল ২০২২ হতে যা বাংলাদেশসহ ভারত উপমহাদেশে ৩রা এপ্রিল হবে। প্রতি বছরের ন্যায় আমরা ২০২২ সালের রোজার সময়সূচি তৈরি ও প্রকাশ করেছি যা ইসলামিক ফাউন্ডেশন ইফতার ও সেহরীর সময়সূচী ২০২২ অনুযায়ী। ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ প্রতিবছর রমজান শুরুর পূর্বে নামাজ ও রোজার স্থায়ী ক্যালেন্ডার মোতাবেক এ বছরের রোজার ক্যালেন্ডার বা রমজানের সময়সূচি প্রকাশ করে থাকে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক প্রকাশিত টাইম টেবিল দেখে বিভিন্ন ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠান রোজার ক্যালেন্ডার তৈরি করে থাকে। আমরাও সে মোতাবেক আপনাদের জন্য সুন্দর ও সাবলীল একটি ইফতার ও সেহরীর সময়সূচি তৈরি করার চেষ্টা করেছি।

আমরা জানি রমজান মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ মাস যা হিজরি বা আরবি সনের নবম মাস। এই মাসে জুড়ে মুসলমানরা সিয়াম সাধনার মাধ্যমে মহান আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতাআলার শুকরিয়া ও সান্নিধ্য পাওয়ার আশায় সিয়াম সাধনা করে থাকে। এই সিয়াম সাধনার অন্যতম দুটি বিষয় হলো ইফতার ও সেহরী। মুসলমানরা রাতের শেষভাগে বা সুবহি সাদিকের মধ্যে সেহরী পানাহারসহ অন্যান্য পালনীয় কাজ শেষ করতঃ বিভিন্ন বিধি নিষেধ পালনের মধ্য দিয়ে দিনের শেষভাগে আবার পানাহার বা ইফতারের মধ্যে দিয়ে রোজা পালন সম্পন্ন করে।

২০২২ সালের শবে বরাত কোন মাসের কত তারিখ

 

ইবাদতের দিক বিবেচনায় এই মাসটিকে তিনভাগে ভাগ করা হয়েছে যার প্রথম অংশ বা প্রথম দশদিনকে বলা হয় রহমতের অংশ। মাঝের দশদিন হলো মাগফিরাত ও শেষ দশ দিন বা অংশকে নাযাতের বিবেচনা করা হয়ে থাকে। এছাড়া, শেষের এই দশদিন মুসলামানদের জন্য রয়েছে আরো একটি বিশেষ ইবাদত যা ইতেকাফ বা এতেকাফ নামে পরিচিত। এই অংশে মুসলমানদের একটি অংশ শেষ অংশের বেজোড় রজনীতে থাকা পবিত্র রজনী শবে কদর খোঁজ করে থাকে। সাধারণত, শব-ই-কদর বা লাইলাতুল কদর একটি অমিমাংসিত একটি নির্দেশনা যার প্রকৃত তারিখ সম্পর্কে মহান আল্লাহ ও তার প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (স) বলে দেন নি। শবে কদর রমজান মাসের কোন তারিখে হবে তা নিয়ে ইসলামী স্কলার্শদের মাঝে তাই রয়েছে মত বিরোধ।

২০২২ সালের ফিতরা কত টাকা

এছাড়া, এই মাসের অন্যতম একটি পালনীয় হলো সাদাকাতুল ফিতরা বা ফিতরা। এটি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন হারে হযে থাকে। মূলতঃ একটি নির্দিষ্ট সময়ে একটি জনপদের প্রচলিত কিছু পণ্যের দামের উপর জনপ্রতি ফিতরার হার নির্ভর করে। সরকার কর্তৃক এটি নির্ধারিত হয়ে যা বাংলাদেশে ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর নির্দিষ্ট বিভাগ সময়ের সাথে বদল হওয়া বাজার-দর দেখে প্রতি বছর তা নির্ধারন করে এবং সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সংবাদ মাধ্যকে অবহিত করে থাকে।

ইফতার ও সেহরীর সময়সূচি ২০২২ ইসলামিক ফাউন্ডেশন

 

হিজরি তারিখ ইংরেজি তারিখ বার/দিন সাহারির শেষ সময় ফজর শুরু ইফতারের সময়
১লা রমজান ০৩ এপ্রিল রবিবার
২রা রমজান ০৪এপ্রিল সোমবার
৩রা রমজান ০৫ এপ্রিল মঙ্গলবার
৪ঠা রমজান ০৬ এপ্রিল বুধবার
৫ম রমজান  ০৭ এপ্রিল বৃহস্পতিবার
৬ষ্ঠ রমজান ০৮ এপ্রিল শুক্রবার
৭ম রমজান ০৯ এপ্রিল শনিবার
৮ম রমজান ১০ এপ্রিল রবিবার
৯ম রমজান ১১ এপ্রিল সোমবার
১০ম রমজান ১২ এপ্রিল মঙ্গলবার

 

ইফতার ও সেহরীর সময়সূচি ২০২২ ইসলামিক ফাউন্ডেশন

 

হিজরি তারিখ ইংরেজি তারিখ বার/দিন সাহারির শেষ সময় ফজর শুরু ইফতারের সময়
১১ রমজান ১৩ এপ্রিল বুধবার
১২ রমজান ১৪ এপ্রিল বৃহস্পতিবার
১৩ রমজান ১৫ এপ্রিল শুক্রবার
১৪ রমজান ১৬ এপ্রিল শনিবার
১৫ রমজান ১৭ এপ্রিল রবিবার
১৬ রমজান ১৮ এপ্রিল সোমবার
১৭ রমজান ১৯ এপ্রিল মঙ্গলবার
১৮ রমজান ২০ এপ্রিল বুধবার
১৯ রমজান ২১ এপ্রিল বৃহস্পতিবার
২০ রমজান ২২ এপ্রিল শুক্রবার

 

ইফতার ও সেহরীর সময়সূচি ২০২২ ইসলামিক ফাউন্ডেশন

 

হিজরি তারিখ ইংরেজি তারিখ বার/দিন সাহারির শেষ সময় ফজর শুরু ইফতারের সময়
২১ রমজান ২৩ এপ্রিল ২০২২ শনিবার
২২ রমজান ২৪ এপ্রিল ২০২২ রবিবার
২৩ রমজান ২৫ এপ্রিল ২০২২ সোমবার
২৪ রমজান ২৬ এপ্রিল ২০২২ মঙ্গলবার
২৫ রমজান ২৭ এপ্রিল ২০২২ বুধবার
২৬ রমজান ২৮ এপ্রিল ২০২২ বৃহস্পতিবার
২৭ রমজান ২৯ এপ্রিল ২০২২ শুক্রবার
২৮ রমজান ৩০ এপ্রিল ২০২২ শনিবার
২৯ রমজান ০১ মে ২০২২ রবিবার
৩০ রমজান ০২ মে ২০২২ সোমবার

 

আমরা জানি ইসলামিক ফাউন্ডেশন শুধু ঢাকা ও এর আশে পাশের জেলার জন্য প্রযোজ্য। সাধারণত ঢাকার সময়ের সাথে সাহরীর সময় মিলে বা সাহরী করা যায় এমন জেলাগুলো হলো নারায়াণগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, টাঙ্গাইল, চাঁদপুর, লক্ষীপুর ও কক্সবাজার। এছাড়া, একই সময় ইফতার করা যায় এমন জেলাগুলো হলো গাজীপুর, নেত্রকোনা ও বাগেরহাট জেলা।

ঢাকার সময়ের সাথে বাড়াতে হবে এমন জেলার সাহরী ও ইফতারির সময়সুচি

ঢাকা হতে সেহরীতে ১ মিনিট বাড়াতে হবে এমন জেলা হলো মানিকগঞ্জ, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, পঞ্চগড় ও নিলফামারী জেলার। আর ইফতারে ১ মিনিট করে বাড়াতে হবে জেলা গুলো হলো মানিকগঞ্জ, গোপালগঞ্জ, ফরিদপুর ও ময়মনসিংহ।

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচী ২০২২ সিরাজগঞ্জ

ঢাকার সময়ের সাথে সেহরীতে ২ মিনিট করে বাড়াতে হবে এমন জেলার তালিকায় রয়েছে ভোলা, শরীয়তপুর, দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁও, জয়পুরহাট, ফরিদপুর, মদারিপুর ও বরিশাল। আর ইফতারে ২ মিনিট বাড়াতে হবে এমন জেলা হলো টাঙ্গাইল ও নাড়াইল।

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচী ২০২২ রংপুর

ঢাকার সময়ের সাথে সেহরীতে ৩ মিনিট করে বাড়াতে হয় নওগাঁ ও ঝালকাঠি জেলার এবং ইফতারে একই সময় বাড়াতে হয় এমন জেলা হলো শেরপুর, জামালপুর, যশোর, মাগুরা, সাতক্ষিরা ও সিরাজগঞ্জ।

ইফতারের সময়সূচি ২০২২ চট্টগ্রাম

এদিকে, নাটোর, পাবনা, রাজবাড়ি, মাগুড়া, পটুয়াখালী ও গোপালগঞ্জ জেলার অধিবাসীদের ইফতার করতে হবে ঢাকার ইফতারের সময়ের সাথে ৪ মিনিট যোগ করে এবং ইফতারে একই সময় যোগ করে ইফতারের সময় নির্ধারন করতে হবে এমন জেলা হলো রাজবাড়ী ও ঝিনাইদহ।

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচী ২০২২ বরিশাল

ঢাকার সময়ের সাথে সেহরীতে ৫ মিনিট যোগ করে যেসকল জেলা হলো কুষ্টিয়া, রাজশাহী, পিরোজপুর, বরগুনা, নড়াইল, বাগেরহাট ও ঝিনাইদহ। এছাড়া, ৫ মিনিট বাড়িতে ইফতারের সময় নির্ধারন করতে হবে এমন জেলা হলো কুষ্টিয়া, পাবনা, গাইবান্ধা, বগুড়া ও চুড়াডাঙ্গা।

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচী ২০২২ বগুড়া

ঢাকার সময়ের সাথে সেহরীতে ৬ মিনিট বাড়িয়ে সেহরীর শেষ সময় নিধারন করতে হয় এমন জেলা হলো চাঁপাইনবাবগঞ্জ, যশোর, চুড়াডাঙ্গা ও খুলনা। অপরদিকে, ইফতারে ৬ মিনিট যোগ করতে হয় এমন জেলার তালিকায় রয়েছে নাটোর ও কুড়িগ্রাম।

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচী ২০২২ খুলনা

মেহেরপুর জেলার সাহরীর শেষ সময় নির্ধারন করতে ঢাকার সময়ের সাথে যোগ করতে হবে ৭ মিনিট এবং একই সময় যোগ করে ইফতারের সময় নির্ধারন করা যাবে মেহেরপুর, রাজশাহী, নওগাঁ, জয়পুরহাট, রংপুর ও লালমনিরহাট জেলার।

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচী ২০২২ সিলেট

ঢাকার সময়ের সাথে ৯ মিনিট যোগ করে ইফতারের সময় নির্ধারন করা হয়ে এমন জেলার তালিকায় রয়েছে নীলফামারী, দিনাজপুর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ।

ঢাকার সময়ের সাথে সর্বোচ্চ সময় ১১ মিনিট যোগ করে ইফতারের সময় নির্ধারন করা হয়ে এমন জেলার তালিকায় রয়েছে সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড় ও ঠাকুরগাঁও।

ঢাকার সময়ের হতে কমিয়ে সেহরী ও ইফতারের সময় নির্ধারন করতে হবে এমন জেলার নাম

ঢাকার সময় হতে ১ মিনিট কমিয়ে সেহরীর সময় নির্ধারন করতে হবে এমন জেলা হলোঃ গাজীপুর, জামালপুর, রংপুর, গাইবান্ধা ও নোয়খালী। একই সময় কমিয়ে ইফতারের সময় নির্ধারন করতে হবে এমন জেলা হলো শরীয়তপুর, মাদারীপুর, পিরোজপুর, কিশোরগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, খুলনা, ঝালকাঠি ও নারায়ণগঞ্জ।

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচী ২০২২ ঢাকা

ঢাকার নির্ধারিত সময় হতে ২ মিনিট কমিয়ে সেহরীর শেষ সময় নির্ধারন করতে হবে এমন জেলার তালিকায় রয়েছে শেরপুর, কুমিল্লা, ফেনী, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, চট্টগ্রাম ও নরসিংদী। এছাড়া, বরিশাল, পটুয়াখালী, নরসিংদী ও বরগুনার ইফতারের সময় নির্ধারন করতে হবে ঢাকার সময় হতে ২ মিনিট কমিয়ে।

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২২ নোয়াখালী

সেহরীরর শেষ সময় নির্ধারন করতে হবে ঢাকার সময় হতে ৩ মিনিটি কমিয়ে, এমন জেলার তালিকায় রয়েছে মযমনসিংহ ও কিশোরগঞ্জ জেলা। অন্যদিকে, ইফতারের সময় নির্ধারনে ঢাকার সময় হতে ৩ মিনিটি কমাতে হতে এমন জেলার তালিকায় রয়েছে বি বাড়িয়া, চাঁদপুর ও ভোলা জেলা।

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২২ কুমিল্লা

অপরদিকে, ঢাকার সময় হতে ৪ মিনিটি কমিয়ে সাহরির সময় নির্ধারন করতে হবে বি বাড়িয়া, নেত্রকোনা, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবন জেলার। এছাড়া, কুমিল্লা, হবিগঞ্জ ও লক্ষিপুর জেলার ইফতারের সময় নির্ধারন করতে হবে ঢাকা জেলার ইফতারের সময় হতে ৪ মিনিট কমিয়ে।

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২২ ঝিনাইদহ

৫ মিনিট কমিয়ে সেহরীর সময় নির্ধারন করতে হবে শুধু খাগড়াছড়ি জেলার যেখানে ৫ মিনিট কমিয়ে ইফতারের সময় নিধারন করা হবে নোয়াখালী, সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলার।

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২২ রাজশাহী

ঢাকার সময় হতে ৬ মিনিট কমিয়ে সেহরী ও ইফতারের সময় নির্ধারন করতে হবে যথাক্রমে হবিগঞ্জ ও ফেনী জেলার।

ঢাকার সময় হতে ৭ মিনিট কমিয়ে সেহরীর সময়সূচী নির্ধারন করতে হবে শুধু সুনামগঞ্জ জেলার।

ঢাকার সময় হতে ৮ মিনিট কমিয়ে সেহরী ও ইফতারের সময় নির্ধারন করতে হবে যথাক্রমে মৌলভীবাজার ও খাগড়াছড়ি জেলার এবং একইভাবে ঢাকার সময় হতে ৯ মিনিট কমিয়ে সেহরী ও ইফতারের সময় নির্ধারন করতে হবে যথাক্রমে সিলেট ও চট্টগ্রাম জেলার।

তবে, ঢাকার সময় হতে ১০ মিনিট কমিয়ে ইফতারের সময় নির্ধারন করতে হবে বান্দরবন, রাঙ্গামাটি ও কক্সবাজার জেলার।

শেষকথা

আমরা জানি, আরবি বছরের মাসগুলো সাধারণত ২৯ কিংবা ৩০ দিনের হয়ে থাকে। সে হিসেবে পবিত্র রমজান মাস যদি ৩০ দিনের হয় তবে হিজরি সনের ১ তারিখ বা পবিত্র ঈদুল ফিতর বা রোজার ইদ হবে ৩ মে ২০২২ অন্যথায় তা একদিন আগে হবে। মহান আল্লাহর কাছে আবেদন আমাদের সবাইকে তার নৈকট্যলাভের জন্য তাঁর নির্দেশনাগুলো পালনের সুযোগ করে দিক। আমিন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.