‘প্রজেক্ট হিলশা’ ইলিশ প্রেমীদের জন্য আন্তর্জাতিক মানের আড্ডাখানা

0 ২৭৫

বাংলাদেশের জাতীয় মাছ ইলিশের বাহ্যিক অবয়বে আন্তর্জাতিক মানের এক রিসোর্টস ও রেস্টুরেন্ট ‘প্রজেক্ট হিলশা’ যা ঢাকার অদুরে মুন্সিগঞ্জ জেলার বিক্রমপুরের শিমুলিয়া ঘাটের কাছাকাছি অবস্থিত। প্রজেক্ট হিলশা সম্প্রতি উদ্ভোধন করা হলে রেস্টুরেন্টটির ব্যতিক্রমী নির্মাণশৈলী, আন্তর্জাতিক মানের সরঞ্জামাদি ও সেবার মানে ভ্রমণ ও ভোজনপ্রেমীদের নিকট অতি অল্প সময়ে আড্ডা ও ভ্রমণের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে। ইলিশ মাছের আদলে তৈরি ও রেস্টুরেন্টটিতে পদ্মার তাজা ইলিশের বিভিন্ন আইটেম প্রাপ্তি ইলিশ প্রেমীদের জন্য যোগ করলো অনন্য এক মাত্রা। এ যেন ইলিশের ভেতরে ঢুকে ইলিশ ভক্ষণ।

ইলিশ প্রেমীদের বাঙ্গালির ইলিশ ভোজন বহুকাল হতে। আর তা যদি হয় পদ্মার ইলিশ, এতো সোনায় সোহাগা। ‘প্রজেক্ট হিলশা’ এমনই এক রেস্টুরেন্ট যেখানে আপনি ইলিশ মাছের অবয়ব ভেতর বসে ইলিশ ভক্ষণ করবেন।

‘প্রজেক্ট হিলশা’ লোকেশন কোথায়?

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে পদ্মার ইলিশ ভোজনরসিকরা মাওয়া ঘাটে আসেন তরতাজা ইলিশের স্বাদ নিতে। মাওয়া ঘাটে মুলতঃ কেজি দরে মাছ কিনে তৎক্ষণাৎ কেটে ভেজে দেওয়া হয়। প্রজেক্ট হিলশা সেই মাওয়া ঘাটে যাওয়ার পথে শিমুলিয়া ঘাটের কাছাকাছি রাস্তার পাশে অবস্থিত। ইলিশরূপী রেস্টুরেন্টটির বাহিরের রূপই চমকে দেবে আপনাকে। ভেতরে রয়েছে চোখ ধাঁধানো আন্তর্জাতিক মানের ফার্নিচার এবং ফাইভ স্টার মানের আপ্যায়ন।

কি মেন্যু পাওয়া যায় ‘প্রজেক্ট হিলশা’য়

রেস্টুরেন্টের নামেই এর উত্তর পাওয়া যায়। মাওয়া ঘাটের মতই কেজি দামে ইলিশ কিনতে পাওয়া যায় যা অর্ডার করার পর প্রসেস করতঃ আপনার সামনেই কাঁচে ঘেরা রান্নাঘরে রান্না করা হবে। করে আপনার সামনে পরিবেশন করা হবে। তবে, এক অর্ডারে সর্বনিম্ন দুই পিস দিতে হবে, তা আপনি একা হোন কিংবা বন্ধু বান্ধব বা পরিবার নিয়ে হোন না কেন। সেরা মানের মশলা ও রাধুনি দ্বারা রান্না করা হয় ইলিশের বিভিন্ন পদ। বিভিন্ন সাইজ ও দামের ইলিশ আপনি পছন্দ করে দিতে পারবেন। ইলিশ মাছের বিভিন্ন পদের আইটেম যেমন সর্ষে ইলিশ, ভাপা ইলিশ, পানিখোলা ইলিশ, ইলিশের ডিম ভাজি, ইলিশ মাছ ভাজি, ইলিশের ডিম ভর্তা, ইলিশ মাছের ল্যাজের ভর্তাসহ ইলিশ মাছেরই ২৫ রকমের মেন্যু ও বাংলা, থাই আর ইন্ডিয়ান সব খাবার।

খাবার, খাবারের মান ও তা পরিবেশন ইতোমধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। FoodBank  ফেসবুক গ্রুপে কাউসার আহমেদ আবিদ নামের একজন মাওয়ায় চালু হওয়া রেস্টুরেন্ট প্রজেক্ট হিলশা নিয়ে একটি পোস্ট করলে তাতে ইতিবাচক নেতিবাচক উভয় রকম কমেন্ট চোখে পড়ে। পোস্টিতে মাত্র ২৪ ঘণ্টায় প্রায় ৮০ হাজার রিয়েক্ট পড়ে এবং ৩২ হাজার জনকে কমেন্ট করতে দেখা যায়। যার মধ্যে বেশির ভাগই ছিল খাবারের দাম ও ইলিশের অর্ডার নিয়ে। অনেকরই মতে দাম খানিকটা বেশি এবং সর্বনিম্ন অর্ডারে দুটি ইলিশ দেওয়া নিয়ে। বেশিরভাগই নিজে বা প্রিয়জন্দেরনিয়ে ঘুরতে যাওয়ার বাসনা প্রকাশ করে মন্তব্য করেছেন। এছাড়া, খাবারের দামের সাথে ১৫% ভ্যাটের সাথে ১০% সার্ভিস চার্জ নিয়েও নেতিবাচক মন্তব্য করেছেন।

একপাশে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য মণ্ডিত প্রজেক্ট হিলশা’য় রয়েছে গাড়ি পার্কিং ও ফ্রি ওয়াইফাই সুবিধা। এছাড়া, ছোট বাচ্চাদের জন্য রয়েছে খেলার সুবিধাযুক্ত লবি।

প্রজেক্ট হিলশা পরিচালিত অফিসিয়াল ওয়েবসাইট (Project Hilsa) জানা যায়, জনাব জিল্লুর রহমান মৃধা (রিপন), জনাব সাজ্জাদুর রহমান মৃধা (শিপন) এবং জনাব শায়দুর রহমান মৃধা (সিজন) মিলে বাংলাদেশের জাতীয় মাছের প্রতি সম্মান ও বিশ্বে এর নাম যশ ফুটিয়ে তোলার লক্ষ্যে ইলিশের আইকনিক এই প্রতিকৃতিকে বিশ্ব পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার চিন্তা থেকেই প্রজেক্টটি বাস্তবায়ন করেন।

২১৫ ফুট দৈর্ঘ নয়নাভিরাম ইলিশ আকৃতির বিশাল এই রেস্টুরেন্টে রয়েছে ৩০০ জনের ধারণক্ষমতা সম্পন্ন স্পেস যা প্রায় দেড় একর জমির উপর নির্মিত। ইলিশ রেস্টুরেন্টটি সম্পূর্ণ শীতাতপনিয়ন্ত্রিত।

Project Hilsa Restaurant Owner Name : Mr. Zillur Rahman Mridha (Ripon), Mr. Sajjadur Rahman Mridha (Shipon) & Mr. Shaydur Rahman Mridha (Sijon)

Project Hilsa Restaurant Menu : More than 25 items of Ilesha Fish in dishes like fish fry, hilsa fish egg fry, Hilsha fish mashed, Hilsha fish tail mashed. Besides the items from hilsah Bengali, Thai and Indian Food also available.

Project Hilsa Restaurant Location: Project Hilsa located near Maowa Shimulia Ghar, Munshiganj. 215 feet long hilsa restaurant builds on a area of 60,000 Square feet where more than 300 persons can sit at a time.

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.