৪৩ তম বিসিএস পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা

0 ১৪৭

৪৩ তম ব্যাচ বিসিএস ক্যাডার নিয়োগ পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করল বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি)। আগামী ৩০ জুন ২০২১ তারিখ সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত আবেদন করা যাবে মর্মে বিজ্ঞপ্তি (সার্কুলার) প্রকাশ করে সরকারি কর্ম কমিশন।

৪৩ তম বিসিএস সার্কুলার

২৯ মার্চ ২০২১ তারিখ সন্ধ্যায় প্রকাশিত ঐ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী জানা যায়, আবেদনকারীদের অনলাইনে করা আবেদন যাচাই বাছাই করত ৪৩ তম বিসিএস এর প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ১৫ অক্টোবর ২০২১ ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, সিলেট, বরিশাল ও ময়মনসিংহ কেন্দ্রসমূহে একযোগে অনুষ্ঠিত হবে।

৪৩ তম বিসিএস পরীক্ষার তারিখ

তবে, পরীক্ষা শুরুর আগেই পরীক্ষার আসন ব্যবস্থা, কেন্দ্র, প্রবেশপত্র ডাউনলোড সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় নির্দেশনা পিএসসি’র ওয়েবসাইট ও জাতীয় দৈনিকে নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বেই প্রকাশ করা হবে।

বিসিএস পরীক্ষার পদ্ধতি

বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের সিভিল সার্ভিসের ২৭ ধরনের ক্যাডার নিয়োগের ক্ষেত্রে বিসিএস বিধিমালা ২০১৪ অনুযায়ী তিন স্তর বিশিষ্ট পরীক্ষা পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়। প্রথমত, ২০০ নম্বরের MCQ Type Preliminary Test; দ্বিতীয়ত, ৯০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা; এবং তৃতীয়ত, ২০০ নম্বরের মৌখিক বা ভাইভা পরীক্ষা।

MCQ Type Preliminary Test

একেকটি পদের বিপরীতে বিপুল সংখ্যক আবেদন পড়ায় যোগ্য পার্থী নির্বাচনে এমসিকিউ পদ্ধতি অনুসরণ করতঃ গ্রহনযোগ্য সংখ্যক আবেদনকারীকে পরবর্তী ধাপের পরীক্ষার (লিখিত) জন্য উর্ত্তীর্ণ করা হয়। এমসিকিউ পরীক্ষা ২ ঘন্টা সময় নিয়ে ১০ বিষয়ের উপর হয়ে থাকে। তবে, বিসিএস পরীক্ষা বিধিমালা ২০১৪ এর পূর্বে এই নম্বর ছিল ১০০।

বিসিএস পরীক্ষার MCQ Type Preliminary Test এর বিষয়ভিত্তিক নম্বর বন্টন নিচের ছক মোতাবেক হয়

বিসিএস প্রিলিমিনারি টেস্টে মূলত এমসিকিউ ধরনের প্রশ্ন হয়ে থাকে।

বিসিএস এমসিকিউ প্রশ্ন ও সিলেবাস

২০০ নম্বরের এই এমসিকিউ টেস্ট প্রশ্ন ১০ বিষয়ে হয়ে থাকে। বাংলা  ভাষা ও সহিত্য হতে ৩৫ নম্বর, ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য হতে ৩৫ নম্বর, বাংলাদেশ বিষয়াবলি হতে ৩০ নম্বর, আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি হতে ২০ নম্বর, ভূগোল (বাংলাদেশ ও বিশ্ব, পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা) হতপ ১০ নম্বর, সাধারণ বিজ্ঞান হতেন১৫ নম্বর, কম্পিউটার ও তথ্য প্রযুক্তি হতপ ১৫ নম্বর, গানিতিক যুক্তি হতপ ১৫ নম্বর, মানসিক দক্ষতা হতে ১৫ নম্বর, নৈতিকতা এবং মূল্যবোধ ও সু-শাসন হতপ ১০ নম্বর। বিসিএস প্রিলিমিনারি এমসিকিউ প্রশ্ন ও সিলেবাস এমনই হয়।

বিসিএস লিখিত প্রশ্ন ও সিলেবাস

বিসিএস পরীক্ষার দ্বিতীয় স্তরটি পরীক্ষা মূলত লিখিত যা ৯০০ নম্বরের হয়ে থাকে। শুধুমাত্র কমিশন কতৃর্ক কৃতকার্য ঘোষিত পার্থীরাই লিখত পরিক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ পেয়ে থাকেন। সাধারণ ক্যাডার ও কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার সকলেই ৯০০ নম্বরের এই লিখত পরীক্ষায় অংশ নেন। তবে পরীক্ষার বিষয় ও বিষয়ভিত্তিক নম্বর বন্টনের হারে পার্থক্য রয়েছে।

সাধারণ ক্যাডারের প্রার্থীদের জন্য লিখিত পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক নম্বর বণ্টনঃ

বাংলা ২০০ নম্বর, ইংরেজি ২০০ নম্বর, বাংলাদেশ বিষয়াবলি ২০০ নম্বর, আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি ১৯৯ নম্বর, গানিতিক ও মানসিক দক্ষতা ১০০ নম্বর এবং সাধারণ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ১০০ নম্বর।

কারিগরি/পেশাগত ক্যাডারের প্রার্থীদের জন্য লিখিত পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক নম্বর বণ্টনঃ

বাংলা ১০০ নম্বর, ইংরেজি ২০০ নম্বর, বাংলাদেশ বিষয়াবলি ২০০ নম্বর, আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি ১৯৯ নম্বর, গানিতিক ও মানসিক দক্ষতা ১০০ নম্বর এবং পদ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ২০০ নম্বর। উল্লেখ্য

 

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.